চান্দিনায় কলেজ ছাত্রীসহ নিহত ৩ আহত ১১

আবুল কালাম আজাদ, কুমিল্লা থেকে: কুমিল্লার চান্দিনায় মাইক্রোবাস ও বালিবাহী ট্রাকের সংঘর্ষে দুই কলেজ ছাত্রীসহ ৩জন নিহত ও ১১জন আহত হয়েছেন। আজ বুধবার দুপুর পৌনে ২টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চান্দিনা গোবিন্দপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলো দেবিদ্ধার উপজেলা প্রেমু গ্রামের আব্দুল ওহাবের মেয়ে পপি আক্তার (১৮), একই গ্রামে মরিয়ম আক্তার মুনমুন (১৮)। তারা উভয়ই চান্দিনা মহিলা ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। অপরজন হলেন কুমিল্লা মনোহরগঞ্জ উপজেলা দুর্গাপুর গ্রামের লাবলী আক্তার (২৮)। আহতরা হলেন- ময়নামতি পরিজপুর এলাকার আব্দুল কাইয়ূম (৩৮) মনোহরগঞ্জ এলাকার মহিউদ্দিন (২৫), সামছুল হুদা (৪৫) মনোহরগঞ্জ দুর্গাপুর রাফি (৫), রাহিমা (৫৫), ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলা নাছিরনগর উপজেলা রসূলপুর গ্রামের রাসেল (২৫)সহ আরোও ৫জন।
মাইক্রোবাস যাত্রী আহত সামছুল হুদা জানান, তিনি চান্দিনা বাস স্টেশন থেকে কুমিল্লা ক্যান্টেনমেন্ট যাওয়ার উদ্দেশ্যে মাইক্রোবাসে উঠেন। ওই মাইক্রোবাসে কলেজ ছাত্রীসহ আরো অন্তত ১০জন যাত্রী ছিল। গোবিন্দপুর স্টেশনে পৌঁছার পর যাত্রী নামানোর জন্য গাড়িটি থামলে পিছনের একটি মাইক্রোবাস ওভারটেকিং করছিল। এসময় পিছন থেকে ছুটে আসা দ্রæতগামী বালুবাহী ট্রাক দুইটি মাইক্রোবাসকে পিছন থেকে ধাক্কা দিলে এঘটনা ঘটে।
হাইওয়ে পুলিশ ময়নামতি থানা উপ-পরির্দশক (এসআই) হারাধন চন্দ্র দাস জানান, একটি মাইক্রোবাস চান্দিনা থেকে ক্যান্টনমেন্ট যাচ্ছিল অপরটি বিদেশী যাত্রী নিয়ে ঢাকা থেকে মনোহরগঞ্জ যাচ্ছিল। মাইক্রোবাসের যাত্রী নামানোর সময় পিছন থেকে ট্রাক ধাক্কা দিলে দ্রæত পালিয়ে যায়। এ সময় ঘটনাস্থলেই একজন মারা যান। বাকিদের কুমিল্লা ইস্টার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর পপি আক্তার ও মুনমুন মারা যান। ঘাতক ট্রাকটি আটক করা সম্ভব হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *