ধূমপান ত্যাগের ২০ মিনিট থেকে ১০ বছর পর যা ঘটবে

অনলাইন ডেস্ক : ধূমপান যে ভয়ংকর বিপদজনক তা ধূমপায়ী অধূমপায়ী সবারই জানা। সুতরাং, আপনি যদি ধূমপায়ী হন তবে মনে রাখবেন এখনই আপনার উচিত ধূমপান ত্যাগ করা।

এটি শুধু আপনার জন্য ভালো তা নয়, আপনার শুভাকাঙ্খী পরিবারের সদস্য ভালোবাসার মানুষ- সবার জন্যই ভালো। হ্যাঁ, বেশিরভাগ মানুষই আপনাকে বলবে, ধূমপান ত্যাগ করা আসলে কঠিন।

কিন্তু মনে রাখবেন, সর্বশেষ ধূমপান করার পর যখন মনস্থির করবেন আপনি আর ধূমপান করবেন না, দেখবেন যত দিন যাচ্ছে আপনার শরীরে কিছু আকর্ষণীয় পরিবর্তন ঘটছে।

আসুন দেখা যাক, বিশেষজ্ঞদের মত অনুযায়ী ধূমপান ত্যাগ করার ২০ মিনিট থেকে ১০ বছরের ভেতর কী কী ইতিবাচক পরিবর্তন হয়:

১। ২০ মিনিট পর
আপনার রক্তচাপ স্বাভাবিক হয়ে আসবে। পরীক্ষা করে দেখতে পারেন আপনার পালস রেট।

২। আট ঘণ্টা পর
শরীরের অক্সিজেন স্তর স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে। শুরু করবে আপনার রক্তের নিকোটিন, কার্বন মনোক্সাইড মাত্রা হ্রাস পেতে।

৩। ৪৮ ঘণ্টা পর
শরীর থেকে কার্বন মনোক্সাইড দূর হবে। ফুসফুস এর শ্লেষ্মা ও ধূমপান জনিত বর্জ্য দূর করার প্রক্রিয়া শুরু করবে। স্বাদ ও গন্ধ গ্রহণের ক্ষমতা দিয়ে আপনি বুঝতে পারবেন কতটা উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন হচ্ছে।

৪। ৭২ ঘণ্টা পর
সক্রিয়ভাবে ধূমপানের সময় আপনি শ্বাস-প্রশ্বাসের ক্ষেত্রে যে সমস্যাগুলোর সম্মুখীন হচ্ছিলেন তা ধীরে ধীরে কমে আসবে। সমস্যা ধীরে ধীরে সমাধান করা হচ্ছে।

৫। ২ থেকে ১২ সপ্তাহ পর
সামগ্রিক রক্ত সঞ্চালন ব্যবস্থা উন্নত হবে।

৬। তিন থেকে ৯ মাস পর
ফুসফুসের কার্যক্ষমতা উন্নত হবে। শ্লেষ্মাজনিত সমস্যার ১০ শতাংশ উন্নতি হবে।

৭। এক বছর পর
স্ট্রোক বা হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি ধূমপায়ীদের তুলনায় অর্ধেকে নেমে আসবে।

৮। ১০ বছর পর
আপনার ফুসফুস ক্যান্সারের ঝুঁকি এখন ধূমপায়ীদের তুলনায় অর্ধেক। বলতে পারেন একজন অধূমপায়ী হিসেবে আপনি এখন হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি থেকে অনেকখানি মুক্ত।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *