রাশিয়ার হারের কারণ তাহলে এই লাস্যময়ী?

স্পোর্টস ডেস্ক : রাশিয়া বিশ্বকাপে গ্যালারি মাতানো সমর্থকদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আলোচনায় রুশ সুন্দরী নাতালিয়া নেমচিনোভা। রাশিয়ার পতাকা হাতে, দেশের জার্সি গায়েই গ্যালারিতে তার উপস্থিতি ছিলো দর্শকদের বাড়তি বিনোদন। রাশিয়ার প্রায় প্রতিটি ম্যাচেই গ্যালারিতে ছিলেন তিনি। তবে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে রাশিয়া বনাম ক্রোয়েশিয়া ম্যাচে ক্যামেরায় খুঁজে পাওয়া যায়নি এই লাস্যময়ীকে। আর সেই কারণে আবারও আলোচনায় নাতালিয়া।
আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে খবর, ৪৮ বছর পর টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে রাশিয়া। সব ম্যাচেরই সাক্ষী ছিলেন নাতালিয়া। কিন্তু শনিবারের ম্যাচে ক্যামেরার লেন্স তাকে খুঁজে পায়নি। আর সে দিনই বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যায় তার দেশ। বিষয়টা কাকতালীয় হলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই বলছেন, নাতালিয়া শুধু রাশিয়ার হটেস্ট ফ্যানই নন, লাকিয়েস্টও বটে। তাই তো তার গরহাজিরে জয়ের মুখই দেখা হলো না রাশিয়ার। অর্থাৎ ‘লেডিলাক’ ফাঁকি দিতেই বিপাকে পড়তে হলো রুশদের।
নাতালিয়ার মাথায় মুকুট ও মিষ্টি হাসি দিয়ে মন ভুলিয়েছিলেন ফুটবলপ্রেমীদের। সোশ্যাল মিডিয়ায় রাতারাতি তারকায় পরিণত হন নাতালিয়া। কিন্তু কেন তিনি শেষ আটের ম্যাচ দেখতে এলেন না? সে উত্তর এখনও মেলেনি। আদৌ অনুপস্থিত ছিলেন কিনা, তা-ও জানা যায়নি। তবে নাতালিয়ার অনুস্থিতিতেই যেন হ্যাপি এন্ডিং হলো না রাশিয়ার। আর রুশদের বিদায়ের সঙ্গে তাকে দেখার আশাও ছাড়তে হলো দর্শকদেরও। এখন অনেকেই বলছেন নাতালিয়া না আসায়ই হেরে গেছে তার দেশ রাশিয়া।

রাশিয়া জিতলে নগ্ন হবেন সেই সুন্দরী
রাশিয়া বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে লড়বে রাশিয়া। আর এ ম্যাচে যদি রাশিয়া বিজয়ী হয় তাহলে পুরো নগ্ন হওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন এবার বিশ্বকাপে রাশিয়ার ‘হটেস্ট ফ্যান’ হিসেবে পরিচিতি পাওয়া নাতালিয়া নেমছিনোভা (২৮)। শুধু যে নগ্ন হবেন তা-ই নয়, একই সঙ্গে তিনি রাশিয়ার পুরো দলের সঙ্গে ‘বিউটিফুল, ক্রেজি, সেক্সি’ ফটোশুটে অংশ নেবেন। তার সঙ্গে কথা বলেছেন ব্লগার ফিওদোর মাসলভ। নাতালিয়ার কাছে মাসলভ জানতে চেয়েছিলেন, শনিবার রাতে ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে কোয়ার্টার ফাইনালে রাশিয়াকে তিনি কিভাবে সহায়তা করতে পারেন? এ প্রশ্নে প্রথমত তিনি একটু লাজুক ভাব নেন। এ সময় মাসলভ তার কাছে জানতে চান, আপনি কি নগ্ন হয়ে পোজ দেয়ার কথা ভাবছেন? এবার সরাসরি জবাব দেন নাতালিয়া। তিনি বলেন, ওকে। আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি সব কিছু দেখিয়ে দেয়ার। নগ্ন হবো। বিউটিফুল, ক্রেজি, সেক্সি ফটোশুট করবো আমাদের জাতীয় স্কোয়াডের সঙ্গে। যাতে সারা বিশ্ব দেখতে পায় আমাদেরকে এবং তারা বিস্মিত হয়। উল্লেখ্য, এবার রাশিয়া বিশ্বকাপে অফিসিয়াল এম্বাসেডর হলেন রাশিয়ান মডেল ভিক্টোরিয়া লোপিরেভা। কিন্তু তিনি নাতালিয়ার থেকে প্রিয় হয়ে উঠতে পারেন নি। প্রতিটি ম্যাচে তার উজ্বল্য হারিয়ে গেছে নাতালিয়ার কাছে। যেন তার গ্ল্যামার ম্লান করে দিচ্ছেন নাতালিয়া। ভিক্টোরিয়া নন, টিভি ক্যামেরা খুঁজে ফেরে তাকে। সেই প্রথম উদ্বোধনী ম্যাচে যখন সৌদি আরবকে ৫-০ গোলে হারায় রাশিয়া তখন টিভির ক্যামেরায় ধরা পড়েন এই যুবতী। তখন থেকেই তিনি গ্ল্যামার ছড়িয়ে যাচ্ছেন। এমন কোনো দিন নেই যেদিন তিনি পশ্চিমা মিডিয়ায় বা পত্রিকায় স্থান করে নিচ্ছেন না। নাতালিয়া পরেন জাতীয় রঙের পোশাক। শরীরের উপরে থাকে একটি অন্তর্বাস জাতীয় বা ট্যাংটপ জাতীয় পোশাক। আর পরেন মিনি স্কার্ট। মাথায় থাকে ‘কোকোশনিক’। এবার বিশ্বকাপে যতগুলো নারীর পরিচিতি বেরিয়ে এসেছে তার মধ্যে অন্যতম এবং সম্ভবত অনেকটা বেশিই হয়েছে নাতালিয়ার ক্ষেত্রে। তবে অনলাইনে যারা গোয়েন্দাগিরি করে বেড়ান তারা সহসাই নাতালিয়াকে চিনে ফেলেছেন। তারা বলেছেন, নাতালিয়া এক সময় পর্নো ছবি করতেন। তার পর্নো ছবি আছে। এমন তথ্য বেরিয়ে আসে মিশরের সঙ্গে রাশিয়ার ম্যাচের আগে। দেখা গেছে নাতালিয়া পর্নো ছবিতে অভিনয় করেছেন কয়েকটি নামে। এর মধ্যে রয়েছে নাতালিয়া নেমছিনোভা, নাতালিয়া আন্দ্রিভা, ডেলিলাহ জি, ডানিকা, আমান্ডা, আসিয়া ও অ্যানাবেল অন্যতম। পর্নো সাইটগুলো তাকে ‘আনইনহিবিটেড’ মডেল হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। বলা হয়েছে, তিনি সফট ও হার্ডকোর মুভিতে অভিনয় করেছেন। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি। বলেছেন, এক বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সে সময় তাদের মধ্যে যেসব শারীরিক সম্পর্ক হয়েছে তা সেই বয়ফ্রেন্ড ধারণ করে ছড়িয়ে দিয়েছে। তিনি নিজে কোনো পর্নো ছবিতে অভিনয় করেন নি। উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৬-১৭ সেশনে যদি চ্যাম্পিয়নস লিগ বিজয়ী হয় তাহলে নেপোলি টিমের প্রতিটি সদস্যের সঙ্গে ‘ওরাল সেক্স’ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ইতালির মডেল পাওলো সাউলিনো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *