‘সারাদেশ থেকে সন্ত্রাসীদের গাজীপুরে এনে জড়ো করেছে বিএনপি’


নিজস্ব প্রতিবেদক :
গাজীপুর ও খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নিশ্চিত ভরাডুবি জেনে বিএনপি মিথ্যাচার শুরু করেছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি সারাদেশ থেকে সন্ত্রাসীদের গাজীপুরে এনে জড়ো করেছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন। বুধবার বেলা ১২টার দিকে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।
নানক বলেন, ‘নাশকতা মামলার দাগি অপরাধীদের সারাদেশ থেকে এনে গাজীপুরে জড়ো করছে বিএনপি। আমরা সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের স্বার্থে অবিলম্বে এই সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘গাজীপুরে বিএনপি মেয়র নির্বাচিত হয়ে জায়গাটিকে বিএনপির রাজনীতির কর্মকাÐের কেন্দ্রস্থল হিসেবে ব্যবহার করেছে। ওই এলাকার মানুষ সেবা পায় নাই। তাই গাজীপুরের জনগণ বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। আমরা বিশ্বাস করি, গাজীপুরের জনগণ বিএনপির কর্মকাÐ আর দেখতে চায় না।’ ভরাডুবি জেনে বিএনপি অপরাজনীতির পথ বেছে নিয়েছে দাবি করে নানক বলেন, ‘আমরা দেশবাসীকে বলতে চাই, বিএনপির শাসন মানে লুটপাট, সন্ত্রাস ও দুর্নীতির অপশাসন। বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে হাওয়া ভবন সৃষ্টি করে যে সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও অপরাজনীতি করেছে, এর জন্য দেশের মানুষ তাদের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। আমরা বিশ্বাস করি, আগামী সিটি নির্বাচনে বিএনপি তাদের নিশ্চিত ভরাডুবির আভাস পেয়ে তারা অপরাজনীতির পথ বেছে নিয়েছে। আমরা এই অপরাজনীতির তীব্র নিন্দা জানাই।’
সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপি হতাশাগ্রস্ত অবস্থা থেকে আবোল-তাবোল বকছে। তারা শ্রমিকের অধিকার চেয়ে সমাবেশ করতে চেয়েছে। তারা আসলে শ্রমিক অধিকারের জন্য নয়, শ্রমিকের অধিকার হরণের জন্য সব সময় সচেষ্ট ছিল।’ সমাবেশের অনুমতি না দেওয়ার বিষয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘গোয়েন্দা তথ্যে বিএনপি বিশৃঙ্খলা করতে পারে এমন খবর ছিল বলেই তাদের সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি।’ বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান জন্মসূত্রে পাকিস্তানের নাগরিক বলে দাবি করেন হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, ‘তারেক রহমান পাকিস্তানের করাচিতে জন্মগ্রহণ করেছিল। সে কারণে জন্মসূত্রে তারেক রহমান পাকিস্তানের নাগরিক।’
সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহম্মদ হোসেন, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *