স্টুডেন্ট কেবিনেট নির্বাচন: ২৩০০০ স্কুলে ভোটের উৎসব

অনলাইন ডেস্ক : দেশের ২৩ হাজার মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও দাখিল মাদরাসায় চলছে ভোটগ্রহণ। ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা সকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দিচ্ছে। তাদের প্রতিনিধি নির্বাচনে বেশ কদিন প্রচারণা শেষে আজ ভোটের লাইনে দাঁড়িয়েছে তারা। এ ভোট নিয়ে স্কুলে স্কুলে চলছে উৎসবের আমেজ। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা নির্বাচিত করবে স্টুডেন্টস কেবিনেট। দেশের ২২ হাজার ৯৬১টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও দাখিল মাদরাসায় এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে মোট ১ লাখ ৮৩ হাজার ৬৮৮টি পদের বিপরীতে ৩ লাখ ২৪ হাজার ৮৩৭জন শিক্ষার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে।

এতে মোট ভোটার ১ কোটি ১৪ লাখ ৯৫ হাজার ৬১৮জন।
এর মধ্যে ছাত্রী প্রায় ৫৫ শতাংশ। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় গাজীপুরের বেগম সুফিয়া মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। বুধবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ২০১৫ খ্রিষ্টাব্দের ৮ আগস্ট পরীক্ষামূলকভাবে প্রথমবারের মতো মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এরপর ধারাবাহিকভাবে প্রতিবছর এ নির্বাচন হয়ে আসছে। মন্ত্রী বলেন, শিশুকাল থেকে গণতন্ত্রের চর্চা ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়াসহ কয়েকটি উদ্দেশ্য নিয়ে এ নির্বাচন করা হচ্ছে।

শিক্ষার্থীদের মধ্যে গণতন্ত্র চর্চা তৈরি করতে ‘স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচনের’ আয়োজন করা হয়। এর মাধ্যমে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে গণতন্ত্র চর্চাসহ একে অপরকে সহযোগিতা করা, শ্রদ্ধা প্রদর্শন, শতভাগ শিক্ষার্থী ভর্তি ও ঝড়ে পড়া রোধে সহযোগিতা, পরিবেশ উন্নয়ন কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ নিশ্চিতসহ ক্রীড়া, সংস্কৃতি ও সহশিক্ষা কার্যক্রমে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত হয়। শিক্ষার্থীদের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হবে আট সদস্যের স্টুডেন্টস কেবিনেট। ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির ছাত্রছাত্রী নির্বাচনে ভোটার। একজন ভোটার সর্বোচ্চ আটটি ভোট দেবে। এর মধ্যে প্রতি শ্রেণিতে একটি করে এবং যেকোনো তিন শ্রেণিতে সর্বোচ্চ দুটি করে ভোট দিতে পারবে। প্রতি শ্রেণি থেকে একজন করে প্রতিনিধি নির্বাচিত হবে। পাঁচ শ্রেণিতে পাঁচজন নির্বাচনের পর তাদের মধ্য হতে সর্বোচ্চ ভোটপ্রাপ্ত তিনজন নির্বাচিত হবে।

স্টুডেন্টস কেবিনেটের নির্বাচিত প্রতিনিধিরা প্রথম সভায় একজন প্রধান প্রতিনিধি মনোনীত করবে। একই সঙ্গে প্রত্যেকের দায়িত্ব বণ্টন এবং সারা বছরের কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করবে। পাশাপাশি প্রতিটি শ্রেণি থেকে দুজন করে সহযোগী সদস্য মনোনীত করতে হবে, যারা নির্বাচিত প্রতিনিধিদের সহায়তা করবে। তাদের ভোটাধিকার থাকবে না। প্রতিষ্ঠানের পরিবেশ সংরক্ষণ (বিদ্যালয়, আঙিনা ও টয়লেট পরিষ্কার এবং বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, পুস্তক ও শিখন সামগ্রী, স্বাস্থ্য, ক্রীড়া, সংস্কৃতি ও সহপাঠ কার্যক্রম, পানিসম্পদ, বৃক্ষ রোপণ ও বাগান তৈরি ইত্যাদি দিবস ও অনুষ্ঠান উদযাপন, অভ্যর্থনা ও আপ্যায়ন এবং আইসিটি এই ৮টি প্রধান দায়িত্বে আটজন নির্বাচিত প্রতিনিধি দায়িত্ব পালন করবেন।

নাটোর প্রতিনিধি জানান, উৎসব মুখর পরিবেশে শান্তিপূর্ণ ভাবে নাটোরের মাধ্যমিক পর্যায়ের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচনে ভোট গ্রহন চলছে। সারা দেশের ন্যায় আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে এক যোগে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে চলবে বেলা ২টা পর্যন্ত। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৮টি পদে ছাত্র নেতৃত্ব নির্বাচিত হবে। তবে দুই শিফটের প্রতিষ্ঠানে ১৬ টি পদে নির্বাচন হবে। এদিকে নির্বাচনে ভোট দিতে পেরে স্কুলের ক্ষুদে ভোটাররা খুব খুশি। তারা এমন প্রার্থীকে নির্বাচিত করবে যে নেতা শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধানে কাজ করবে। অন্যায় কাজের সাথে যুক্ত হবে না। প্রার্থীরা জানায়, তারা স্কুলের শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধানে কাজ করবে। শিক্ষকরা জানান, এর মাধ্যমে তারা গণতান্ত্রিক চর্চার প্রথম পাঠ নিচ্ছে। এতে করে শিক্ষার্থীরা গনতান্ত্রিক চর্চার সুযোগ পাবে। এখান থেকেই তারা ভোটের ফলাফল মেনে নেয়ার বিষয়টি শিখবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *