স্বাধীনতার অধিকার

মোহাম্মদ আবদুল্লাহ মজুমদার

স্বাধীনতা, তোমাকে স্বাগত জানাতে আমি প্রস্তুত
শুনেছি আমাদের পূর্বে বীর সন্তানরা
তোমাকে তাদের সর্বস্ব দান করে গেছে।
আমাদের আর কোন পরিশ্রম করতে হবেনা।
শুধুমাত্র তোমাকে সঙ্গী করে জীবন অতিবাহিত করবো।
কিন্তু এখন দেখছি তুমি খুবই বিশ্বাসঘাতক।
নিম্নঞ্চলের কীটের চেয়ে নিকৃষ্ট।
নিশ্চয় তুমি এখন যুক্তি-তর্ক উপস্থাপন শুরু করবে তাইনা?
খবরদার, প্রাণ উৎসর্গকারী আমাদের বীর সন্তানদের নিয়ে
কোন আপত্তিকর মন্তব্য করবে না।
তারা কখনো মিথ্যা বলেনা। বলতে পারে না।
আজ তোমরা তোমাদের সক্ষমতা বিসর্জন দিয়ে
তাদের মুখে কালিমা লেপনের
অপচেষ্টায় লিপ্ত আছো।
শুধু আমাদের জন্য, এ মাতৃভূমির জন্য
ধন ও প্রাণ দিয়ে, শত সহস্র জীবন দিয়ে
তোমাকে পাহারাদার রেখে গেছে।
তুমি তোমার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করোনি।
বেঈমান! তোমার আর গলা উঁচু করে কথা বলার
কোন অধিকার নেই।
ফিরিয়ে দাও আমাদের হীরার টুকরো বীর সন্তানের তাজা প্রাণগুলো।
ফিরিয়ে দাও মায়েদের লুটে নেয়া অমূল্য সম্ভ্রম।
তুমি হয়তো আরো রক্ত চাইবে
আরো জীবন চাইবে, তাইনা?
আর কখনো এমন মিথ্যে বলতে এলে
বাম হাত দিয়ে জিব টেনে ছিড়ে ফেলবো।
আর একফোটাও নয়, এক বিন্দু ঘামও নয়।
তুমি ফিরে যাও, তোমার কলঙ্কিত চেহারা
আমরা আর দেখতে চাইনা।
আমরা মেরুদন্ডহীন নই
আবারও খুঁজে নিবো মুক্তি।
ছিনিয়ে আনবো প্রকৃত স্বাধীনতাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *