‘এত বড় কঠিন সময় বাংলাদেশের ইতিহাসে আর আসেনি’

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশ কঠিন একটা সময় পার করছে। এত বড় কঠিন সময় হয়তো বাংলাদেশের ইতিহাসে আর আসেনি। মুক্তিযুদ্ধ শুরু হওয়ার আগেও আমরা এমন অসহায়বোধ করিনি। তখন দেশে একটা ঐক্য ছিল। সার্বভৌমত্ব ছিল। জনগণের সামনে একটি শক্তি ছিল। এখন সবকিছু তছনছ করে দেয়া হয়েছে।’

গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবে ডক্টরস এসোসিয়েশন বাংলাদেশ ড্যাব এর ৩০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ১৯৯০ সালে আমরা যে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছি। সে গণতন্ত্র এখন আর নাই। এখন চারদিকে লুটপাট। দেশের গণতন্ত্র আজ বিলীন হয়ে গেছে। দেশে বিচার ব্যবস্থা বলতে কিছুই নেই। দেশে রাজনৈতিক শক্তি বলতে কিছুই নেই। এক এগারোর সময় যারা দেশ পরিচালনা করেছেন তাদের মূল চিন্তাই ছিল দেশে বিরাজনীতিকরণ ব্যবস্থা করা। সেই ধারাবাহিকতায় এই সরকারও তা বাস্তবায়িত করতে চলেছে। যেখানে মানুষের স্বাধীনতা এবং অধিকার বলতে কিছুই নেই। ১৯৭২ সালে যে সংবিধান লেখা হয়েছে, সেই সংবিধানের প্রতিটি অংশকে কেটে ছিন্ন ভিন্ন করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় দীর্ঘদিন টিকে থাকার জন্য সংবিধানকে জলাঞ্জলি দিয়ে তারা তাদের মতো করে সংবিধান তৈরি করেছে।

ডেঙ্গু প্রতিরোধে অকার্যকর ওষুধ আমদানি করা হচ্ছে অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, মশা মারার ওষুধ কার্যকর হচ্ছে না। হবে কোথা থেকে, যে দুর্নীতি তারা করে তাতে তো কার্যকর হওয়ার কথা না। এখন নতুন ওষুধ আনবে, সেখানে আরও দুর্নীতি হবে। এখন এ অবস্থা যে হীরক রাজার দেশের চেয়েও অধম হয়ে গেছে। তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালে আওয়ামী লীগই একদলীয় বাকশাল তৈরী করেছিল। মানুষের মৌলিক অধিকার কেড়ে নিয়েছিল। সেই আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রের লেবাস পরে আবার তারা বাকশাল কায়েম করেছে।

বর্তমান সংসদ ভেঙে নির্দলীয় তত্ত্ববধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দেয়ার দাবি জানান ফখরুল। ড্যাবের সভাপতি ডা. হারুন আল রশিদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ডা. সিরাজ উদ্দিন, ড্যাবের নব নির্বাচিত মহাসচিব ডা. আবদুস সালাম, কৃষিবিদ শামিমুর রহমান শামিম প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *