খাপুড়া গ্রামে জিয়ারীকে ধর্ষণের অভিযোগে তালুই জেলহাজতে

আবুল কালাম আজাদ ভূইয়া, কুমিল্লা থেকে: খাপুড়া গ্রামে জিয়ারীকে ধর্ষণের অভিযোগ তালুই জাহাঙ্গীর আলম জেলহাজতে পাঠিয়েছে বাঙ্গরা বাজার থানা পুলিশ।

গ্রামবাসী ও মামলার সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা জেলা মুরাদনগর উপজেলা ৮নং চাপিতলা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের খাপুড়া গ্রামের মৃতঃ আব্দুল বারেক মিয়ার ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (৫০)-এর মেয়ে শরিফা আক্তারকে বিবাহ দেন একই গ্রামে একই বাড়ীর মৃতঃ শহিদ মিয়ার ছেলে বাবুল মিয়ার কাছে। অপরদিকে জাহাঙ্গীর আলম বিবাহ করেন নিশাতের ফুফু মৃতঃ শহিদ মিয়ার বোন শাহিদাকে। ধর্ষিতা নিশাত বার বার অভিযোগ করেন ফুফু শাহিদার কাছে স্বামী জাহাঙ্গীর আলম আমাকে ধর্ষণ করে। ফুফু স্বামীর বিচার না করায় নিশাত জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে বাঙ্গরা বাজার থানায় ধর্ষণের অভিযোগ দাখিল করেন।

বাঙ্গরা বাজার থানা পুলিশ লিখিত অভিযোগ পেয়ে পলাতক জাহাঙ্গীর আলমকে ঢাকা বংশাল থানা ছুরিটোলার এক বাসা থেকে গত শনিবার মধ্যরাতে পুলিশ গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠায়।

৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ সোহেল মিয়া জানান, জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে খাপুড়া গ্রামে ৩টি বিয়ে, রগুরামপুর গ্রামে ১টি ও দেবিদ্ধার থানা খায়ের মহেশপুর গ্রামে ১টি বিয়েসহ মোট ৫টি বিয়ে করার অভিযোগ রয়েছে।

বাঙ্গরা বাজার থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কামরুল হাওলাদার জানান, খাপুড়া গ্রামের শহিদ মিয়ার মেয়ে নিশাত আক্তার বাদী হয়ে একই গ্রামের মৃতঃ আব্দুল বারেক মিয়ার ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (৫০) বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেন। পরে জাহাঙ্গীর আলমকে ঢাকা থেকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। নিশাতকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডাক্তারী পরীক্ষা জন্য পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *