খালেদার চিকিৎসায় সরকারের নাটক: বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক : স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় নেওয়াকে ‘নাটক’ আখ্যায়িত করেছে বিএনপি। চিকিৎসার নামে তাকে হেনস্তা করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।
জিয়া এতিমখানা দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য তাকে শনিবার বিএসএমএমইউ হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সেখানে বিএনপি চেয়ারপারসনের পছন্দের চিকিৎসরাই তাকে দেখেছেন।
কারাবন্দি খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার দাবি জানিয়ে আসছিল বিএনপি; তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের চিকিৎসার সুযোগ দেওয়ার দাবিও জানিয়ে আসছে তারা।
হাসপাতাল থেকে খালেদাকে কারাগারে ফেরত নেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর নয়া পল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে প্রতিক্রিয়া জানান রিজভী।
তিনি বলেন, দেশনেত্রীর আজকে চিকিৎসার কিছুই হয়নি। শুধু হেনস্তা করা হলো, হয়রানি করা হলো’।
শুধু মানসিকভাবে, শারীরিকভাবে কষ্ট দেওয়ার জন্য সরকার এই নাটকটি করেছে, এই বায়স্কোপটি করেছে, এই প্রহসন করেছে।
গাড়ি থেকে খালেদা জিয়ার নেমে হেঁটে লিফটে ওঠা ও পরীক্ষার জন্য যাওয়ার দিকটি তুলে ধরে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবদুল্লাহ আল হারুন বলেছেন, তার কাছে বিএনপি চেয়ারপাসনকে ‘আপাতদৃষ্টিতে ভালো’ মনে হয়েছে।
পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন সড়কের পুরনো কারাগারে বন্দিজীবনের দুই মাসে শনিবারই প্রথম বের হলেন খালেদা; দুই ঘণ্টার বেশি সময় বাইরে ছিলেন তিনি।
বিএনপি নেতা রিজভী অভিযোগ করেন, তার নেত্রীকে ‘বাধ্য করে’ হাসপাতালে আনা হয়েছিল।

বোঝাই যাচ্ছে তাকে অনেকটা জোর করেই নিয়ে আনা হয়েছে। আমরা শুনেছি, কারাগারের তার কক্ষে গিয়ে বার বার তাগিদ দিয়েছে দ্রæত প্রস্তুতি নিতে।
আমাদের প্রিয়নেত্রীকে তো কখনও এই লেবাসে দেখিনি। একজন ধর্মপ্রাণ মুসলিম নারী হিসেবে ৩০/৩২ বছর ধরে তিনি শাড়ির ওপর চাদর অথবা ওড়না পরিধান করেন। আজকে সেটি পরিধান করারও সুযোগ দেওয়া হয়নি।
শুধু তাই নয় দেশনেত্রীকে একরকম জোর করেই গাড়িতে উঠিয়ে হাসপাতালে আনা হয়েছে। কোনো চিকিৎসাই সেখানে তাকে দেওয়া হয়নি।
সুচিকিৎসার অভাবে দেশনেত্রীর কোনো ক্ষতি হলে এর দায় সরকারকেই নিতে হবে বলে সরকারকে হুঁশিয়ার করেন রিজভী।
বিএসএমএমইউ হাসপাতালে খালেদা জিয়াকে নেওয়ার সময়ে উপস্থিত নেতা-কর্মীদের উপর পুলিশি হামলা ও সেখান থেকে ১৩ জনকে আটকের নিন্দাও জানান তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে রিজভীর সঙ্গে ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবদুস সালাম, শাহাজাদা মিয়া, হাবিবুর রহমান হাবিব, অধ্যাপক সিরাজউদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক মীর ফাওয়াজ হোসেন শুভ, সহ স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, রফিকুল ইসলাম, জাহানারা বেগম, ডা. সাইফউদ্দিন নিছার আহমেদ, ডা. মোফাখারুল ইসলাম রানা, ডা. জাহেদুল কবির, ডা. মো. জাফর ইকবাল, ডা. ওয়াসি খান জনি, ডা. মো. হুমায়ুন কবির প্রিন্স প্রমুখ।

Check Also

শনিবারের জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা স্থগিত

স্টাফ রিপোর্টার : ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর কারণে সারা দেশে আগামীকাল শনিবারের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) …

এসপি হারুনের বিরুদ্ধে শিগগিরই তদন্ত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক: পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের শিগগিরই তদন্ত শুরু হবে বলে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *