চট্টগ্রামের তরুণীর প্রেমে বৃটিশ তরুণ বাংলাদেশে

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : এতদিন জানা গেছে বাংলাদেশি যুবকের টানে বিদেশি নারী ছুটে আসার খবর। এবার বাংলাদেশি তরুণীর প্রেমে পড়ে সুদূর ব্রিটেন থেকে চট্টগ্রামে উড়ে এসেছেন ব্রিটিশ তরুণ।

এরপর ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে বিয়ের পিঁড়িতেও বসেছেন। ওই ব্রিটিশ যুবকের নাম গ্রাহাম স্টুয়ার্ট। আর তরুণীর নাম ফেরদৌসি কবির মুক্তা। শুক্রবার জমকালো ভাবে হয়েছে তাদের বিয়ে।

মুক্তা চট্টগ্রামের সন্দ্বীপের হুমায়ুন কবির হেলালীর মেয়ে। নবদম্পতি বর্তমানে চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানার লাভলেন এলাকায় কবির হেলালীর বাড়িতে অবস্থান করছেন।

জানা যায়, মুক্তা লন্ডনের নটিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় স্টুয়াডের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এক সময় স্টুয়ার্ড তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। কিন্তু ধর্ম ও সামাজিকতার কারণে তা মেনে নেয়নি মুক্তার পরিবার। কিন্তু প্রেমিকাকে পেতে তিনি ছুটে আসেন চট্টগ্রাম। পরিবর্তন করেন ধর্ম। স্টুয়ার্ড হয়ে যান সাইমন কবির।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশি রীতি অনুযায়ী বিয়ের আগে অনুষ্ঠিত হয় গায়ে হলুদ। শুক্রবার নগরের রীমা কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণিল বিয়ের আসর। যেখানে আত্মীয়-স্বজন ছাড়াও নগরের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা ছিলেন আমন্ত্রিত অতিথি। ২৯ ডিসেম্বর লন্ডন পাড়ি দেবেন ব্রিটিশ তরুণ।

এ বিষয়ে ফেরদৌসি কবির মুক্তার বাবা হুমায়ুন কবির হেলালী জানান, মুক্তা ২০১৭ সালে লন্ডনের নটিংহাম ইউনিভার্সিটিতে পড়তে যান। লন্ডনে পড়াকালীন গ্রাহামের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এরপর থেকে নিয়মিত যোগাযোগ হতো তাদের। পারিবারিকভাবে বিয়ের কথা উঠলে ধর্মীয় বিষয়টি সামনে আসে। পরে গ্রাহাম ইসলাম ধর্ম গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের সামাজিকতার বিষয়টি তাকে জানানোর পর সে এখানে এসে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয়। গত ১৪ ডিসেম্বর গ্রাহামে বাংলাদেশে আসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *