চাকরি খুঁজছেন আবুল মাল আবদুল মুহিত

অনলাইন ডেস্ক : আবুল মাল আবদুল মুহিত। সাবেক অর্থমন্ত্রী। একসময় সরকারি চাকরি ছেড়ে রাজনীতিতে জড়িয়েছিলেন। গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে রাজনীতি থেকে অবসরের ঘোষণা দেন তিনি।

এরপর থেকে পুরোপুরি একাই কাটছে মুহিতের সময়। এর আগে অবশ্য আওয়ামী লীগের দুই মেয়াদের অর্থমন্ত্রী তিনি। সরকারি চাকরি থেকে অবসর নিয়ে দেশে বিদেশে গবেষণা, সামাজিক সংগঠন ও পরে রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন।

নানা কাজে ব্যস্ত থাকায় বর্ণাঢ্য জীবনে মুহিত বিশ্রাম পেয়েছেন খুব সামান্যই। জীবনের সিংহভাগ ব্যয় করেছেন ব্যস্ততার মাঝে। সেই গুণী মানুষটির এখনকার সময় কাটছে একাকীত্বে। এখন বেকার সময় তার আর ভাল লাগছে না। এখন নিজেকে নিয়ে নতুন কোন কাজে জড়াতে চান মুহিত। এমনটাই জানিয়েছেন তার ঘনিষ্ঠজনরা।

মুহিতের ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা যায়, অবসরে আসার পর থেকে অনেকটাই একা হয়ে পড়েন মুহিত। সারাদিন শুয়ে, বসে কিংবা বই পড়ে সময় কাটান। তাই তিনি চাইছেন বাইরের কোনো কাজে যুক্ত হতে। এই কারণে নতুন কোন চাকরি খুঁজছেন মুহিত।

সূত্র জানায়, এখনও যে কোনো উৎসব-অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রিত হলে যোগ দেন মুহিত। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালন উপলক্ষে আয়োজিত নানা সভাতেও যান মাঝেমধ্যে। মূলত তিনি কাজে ব্যস্ত থেকে মানুষের সঙ্গে ভালো সময় কাটাতে চান। প্রায়ই তার ঘনিষ্ঠদের মুহিত বলেন, আগে অনেক কাজ করতে হতো। সারাক্ষণ ব্যস্ত থাকতাম। এখন কোনো কাজ নেই। একা সময় কাটাতে ভালো লাগে না।

আমলা হিসেবে কর্মজীবন শুরু করা আবুল মাল আবদুল মুহিত বিভিন্ন সময় সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। মুক্তিযুদ্ধের সমর্থনে ১৯৭১ সালে সরকারি চাকরি থেকে ইস্তফা দেওয়া, স্বাধীনতাপরবর্তী সময়ে সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে দায়িত্ব পালন করার পর গত শতকের একেবারে শেষ প্রান্তে রাজনীতিতে নাম লেখান। আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়ে মর্যাদাপূর্ণ সিলেট-১ আসনে ২০০১ সালে নির্বাচন করেন আবুল মাল আবদুল মুহিত। তবে প্রথমবারের অভিজ্ঞতা সুখকর ছিল না। সেবার হেরে যান আরেক হেভিওয়েট প্রার্থী বিএনপি নেতা ও সাবেক অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমানের কাছে। কিন্তু পরের বার ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাইফুর রহমানকেই পরাজিত করে প্রথমবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন মুহিত।

আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এলে তাকে অর্থমন্ত্রী করা হয়। এরপর ২০১৪ সালের নির্বাচনে জয়লাভ করে টানা দ্বিতীয়বারের মতো সংসদ সদস্য হন তিনি। অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা মুহিত তার সরাসরি ও স্পষ্ট কথাবার্তার জন্য নিয়মিত সংবাদমাধ্যমে আলোচিত হতেন। সৎ ও পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ হিসেবে দেশজুড়ে সুনাম কুড়িয়েছেন তিনি।

Check Also

Abul Mal Abdul Muhit

জামায়াত নিষিদ্ধে প্রবলেম আছে : মুহিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের মানুষদের চাওয়া, একাত্তরের মানবতাবিরোধীদের বিচারের ফয়সালার সময় আদালতের পর্যবেক্ষণ, তার …

Abul Mal Abdul Muhit

ব্যাংকের খেলাপি ঋণের জন্য সরকার দায়ী: অর্থমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক : রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণ বেড়ে যাওয়ার জন্য সরকারকে দায়ী করলেন অর্থমন্ত্রী আবুল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *