ঝালকাঠিতে মুক্তিযোদ্ধার সনদ নিয়ে সুলতান দুয়ারীর প্রতারণা

গাজী গিয়াস উদ্দিন বশির, ঝালকাঠি থেকে: ঝালকাঠিতে মুক্তিযুদ্ধ না করে মুক্তিযোদ্ধার ভাতা গ্রহণকারী সুলতান দুয়ারীর বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা সুলতান মাঝির ছেলে।
শনিবার সকাল ১১টায় স্থানীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এলাকাবাসী মানববন্ধন করে। এ সময় বক্তারা দ্রæত মুক্তিযুদ্ধের গ্রেজেট প্রকাশ ও প্রতারক, ভ‚মিদস্যু সুলতান দুয়ারীর বিচারের দাবি জানান।
উল্লেখ্য. ঝালকাঠি সদর উপজেলার পিপলিতা গ্রামের মৃত সৈয়জদ্দিনের ছেলে সুলতান হোসেন মাঝি। একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন তিনি। দেশ স্বাধীনের পর মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জেনারেলও আতাউল গণি ওসমানীর দেয়া সনদ পান তিনি। লেখাপড়া না জানলেও সুলতান মাঝি সযতেœ তুলে রেখেছিলেন সনদটি।
মুক্তিযুদ্ধের অনেক পরে ভাতা দেয়ার নাম করে তার কাছ থেকে সনদটি নেন পাশের গ্রামের নেহালপুরের মৃত সৈয়দ আলী দুয়ারীর ছেলে সুলতান আহম্মেদ দুয়ারী। তবে ভাতা দূরে থাক, সনদই আর ফেরত পাননি সুলতান মাঝি। প্রভাবশালী হওয়ায় এ নিয়ে সুলতান দুয়ারীর সাথে জোরাজুরিও করেননি সুলতান মাঝি। স্থানীয়দের কাছে ‘চতুর’ হিসেবে পরিচিত সুলতান আহম্মেদ দুয়ারী এরই মধ্যে সনদটি নিজের করে নেন। বিভিন্ন অফিসে দৌঁড়ঝাপ করে ‘বাবার নাম ভুল’ দাবি করে ‘সংশোধন’ করে নেন সনদটি। সুলতান মাঝির বাবার নাম (মৃত সৈয়জদ্দিন) সরিয়ে সেখানে যুক্ত করে নেন নিজের বাবার নাম (মৃত সৈয়দ আলী দুয়ারী)। তাতেই বাজিমাত! যুদ্ধে অংশ না নিয়েই রাতারাতি মুক্তিযোদ্ধা বনে যান সুলতান আহম্মেদ দুয়ারী।
এরপর একের পর এক সরকারি সকল সুবিধা বাগিয়ে নেন তিনি। মুক্তিযোদ্ধা কোটায় সন্তানদের চাকরি থেকে শুরু করে দীর্ঘদিন রাষ্ট্রীয় সকল সুবিধা ভোগ করছিলেন সুলতান দুয়ারী। তবে স¤প্রতি এনিয়ে সরব হয় সুলতান মাঝি ও তার পরিবার। তাদেরকে সহযোগিতা করেন স্থানীয় বাসিন্দারাও। বিষয়টি নিয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) লিখিত অভিযোগ করেন তারা। বিষয়টি তদন্ত করে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন দেন প্রশাসন। তাতেই উঠে আসে সুলতান দুয়ারীর প্রতারণার চিত্র। এর প্রেক্ষিতে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) ৪৮তম সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সৈয়দ আলী দুয়ারীর ছেলে ‘সুলতান হোসেন দুয়ারীর’ মুক্তিযোদ্ধার গেজেট ও সনদ বাতিল করা হয়।
গত ২২ নভেম্বর মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব রথীন্দ্রনাথ দত্ত স্বাক্ষরিত আদেশের চিঠি ১ ডিসেম্বর ঝালকাঠির সদর উপজেলার ইউএনও সাবেকুন নাহারের কাছে পৌঁছে। এরপর ইউএনও উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তাকে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন।

Check Also

এই সময়ে অপু বিশ্বাস

বিনোদন রিপোর্টার: জনপ্রিয় নায়িকা অপু বিশ্বাস। অনেক ব্যবসাসফল সিনেমা উপহার দিয়েছেন তিনি। তবে দীর্ঘদিন পর্দায় …

রাখির নয়া পাগলামি

বিনোদন ডেস্ক: বলিউডের কন্ট্রোভার্সি কুইন রাখি সাবন্ত। কোনো কিছুতেই ভয় নেই তার। কারো কোনো কথা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *