টিকা উৎপাদানকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউটে অগ্নিকাণ্ডে ৫ জনের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতে করোনার টিকা উৎপাদানকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউটের একটি স্থাপনায় অগ্নিকাণ্ডে অন্তত পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) বেলা ৩টার দিকে পুনেতে প্রতিষ্ঠানটির একটি নির্মাণাধীন ভবনে আগুন লাগার পর ফায়ার সার্ভিসের অন্তত ১৫টি ইউনিট তিন ঘণ্টার চেষ্টায় তা নিয়ন্ত্রণে আনে।

সেরাম ইনস্টিটিউটের সিইও আদর পূনাওয়ালা বলেন, করোনাভাইরাসের টিকা উৎপাদনে এ অগ্নিকাণ্ডের কোনো প্রভাব পড়বে না।

মহারাষ্ট্রের পুণের মঞ্জরী এলাকায় একশ একরের বেশি জায়গা জুড়ে গড়ে তোলা সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইনডিয়া পুরো বিশ্বে টিকা উৎপাদনকারী সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান।

রয়টার্স লিখেছে, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনাভাইরাসের টিকার ৫ কোটি ডোজ সেখানে প্রতি মাসে উৎপাদন করা হচ্ছে, যার দিকে তাকিয়ে আছে নিম্ন ও মধ্যম আয়ের বহু দেশ।

বাংলাদেশ সেরাম ইনস্টিটিউটের কাছ থেকেই তিন কোটি ডোজ টিকা কিনেছে, যার প্রথম চালান ২৫ জানুয়ারির মধ্যে দেশে পৌঁছানোর কথা।

ভারত সরকার উপহার হিসেবে বৃহস্পতিবার যে ২০ লাখ ডোজ টিকা পাঠিয়েছে, তাও সেরাম ইনস্টিটিউটেরই তৈরি।

আনন্দবাজার জানিয়েছে, ইনস্টিটিউটের ১ নম্বর টার্মিনালের গেটের পাশে নির্মাণাধীন একটি টিকা উৎপাদন প্ল্যান্টে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। সেখানে উৎপাদন শুরু না হলেও প্রস্তুতি চলছিল।

ভবনটির চতুর্থ ও পঞ্চম তলায় আগুন লাগার পর তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করেন। ভবনটি থেকে নয়জনকে উদ্ধার করেন তারা।

অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরেও ঘটনাস্থলে ছুটে যান। পুনের মেয়র মুরলিধর মহলের বরাত দিয়ে পাঁচজন কর্মীর মৃত্যুর খবর জানায় ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো।

পরে সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান আদর পূনাওয়ালা এক টুইটে এ অগ্নিকাণ্ডে প্রাণহানির কথা জানিয়ে শোক প্রকাশ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *