বাণিজ্যযুদ্ধ শিথিলে যুক্তরাষ্ট্র-চীন চুক্তি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বাণিজ্যযুদ্ধকে শিথিল করার লক্ষ্যে একটি চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও চীন। দুই দেশের মধ্যে চলমান বাণিজ্যযুদ্ধ বিশ্ব অর্থনীতিতে বড় রকমের প্রভাব ফেলেছে এবং বাজারকে করে তুলেছে এলোমেলো। এমন অবস্থাকে স্বাভাবিক পর্যায়ে আনতে ওই চুক্তি করা হয়েছে। ওয়াশিংটনে এ নিয়ে মন্তব্য করেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, এই চুক্তিটি যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতির জন্য পরিবর্তনশীল হবে। অন্যদিকে চীনা কর্মকর্তারা চুক্তিটিকে উভয় পক্ষের জন্য ‘উইন-উইন’ চুক্তি বলে আখ্যায়িত করেছেন। তারা মনে করছেন, এর ফলে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক উন্নত হবে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্র থেকে যে পরিমাণ আমদানি করেছে চীন তা ২০০০০ কোটি ডলার করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে চীন। একই সঙ্গে বৃদ্ধিবৃত্তিক সম্পদ বিষয়ক আইন শক্তিশালী করার কথা বলা হয়েছে। বিনিময়ে চীনা পণ্যের ওপর আরোপিত নতুন শুল্ক অর্ধেক করে দিতে রাজি হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে এখনও সীমান্তে আয়কর আগের অবস্থায়ই রয়েছে। এর ফলে ব্যবসায়িক গ্রুপগুলো আরো আলোচনার দাবি তুলেছে। ইউএস চেম্বার অব কমার্সের চায়না সেন্টারের প্রেসিডেন্ট জেরেমি ওয়াটারম্যান বলেছেন, সামনে আরো প্রচুর কাজ করতে হবে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সাল থেকে শুল্ক আরোপের যুদ্ধে ঢিলটি মারলে পাটকেলটি খেতে হবে এমন এক যুদ্ধে লিপ্ত হয় যুক্তরাষ্ট্র ও চীন। এর ফলে ৪৫০০০ কোটি ডলার মূল্যের পণ্যের ওপর অতিরিক্ত আমদানি কর দিতে হয়। চলমান এই বিরোধে বাণিজ্যিক প্রবাহ বিঘ্নিত হচ্ছে। বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এর অবসানে এই চুক্তি করা হয়েছে। এর আওতায় ২০০০০ কোটির যে মার্কিন পণ্য আমদানি করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছে চীন তার মধ্যে রয়েছে কৃষিজাত, শিল্পজাত, জ্বালানি ও সেবাখাত। কৃষি উৎপাদন আমদানি করবে ৩২০০ কোটি ডলারের। শিল্পজাত পণ্য আমদানি করবে ৭৮০০ কোটি ডলারের। জ্বালানি আমদানি করবে ৫২০০ কোটি ডলারের এবং সেবাখাত থেকে আমদানি করা হবে ৩৮০০ কোটি ডলারের সেবা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *