মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফেরৎ নিতে চাইছে না : প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আন্তর্জান্তিক সম্প্রদায় রোহিঙ্গাদের ফেরত নেয়ার বিষয়ে সোচ্চার হলেও মিয়ানমার তাদের ফেরৎ নিতে চাইছে না। কিছু আন্তর্জাতিক সংস্থাও চায় না রোহিঙ্গারা নিজের দেশে ফিরে যাক। আজ বিকালে গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

পাসপোর্ট ছাড়া বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের পাইলন ক্যাপ্টেন ফজল মাহমুদের কাতারে যাওয়া প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, ‘যখনই বিমানে উঠি, তখনই একটা ঘটনা ঘটে বা একটা নিউজ হয়। তো এই নিউজটা কেন হয় আমি জানি না। হয়তো পাসপোর্ট ভুলে যেতে পারে, পাসপোর্ট ভোলা কোনো ব্যাপার নয়। কিন্তু এখানে ইমিগ্রেশনে যারা ছিল, তাদের তো এই নজরটা থাকতে হবে। তো আমার কাছে খবর যাওয়ার সাথে সাথে বলেছি, ইমিডিয়েটলি ব্যবস্থা নিতে, যে ইমিগ্রেশনে কারা ছিল, কেন চেক করেনি, কেন দেখেনি।’

ইমিগ্রেশনে আরও কড়াকড়ির কথা বলে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি আরেকটা কথা বলব, তো আমরা কিন্তু এখন ইমিগ্রেশনে খুব কড়াকড়ি করতে বলেছি। আমাদের তো সবাই এখন ভিআইপি, ভিভিআইপি, এরপর বোধহয় আরও ‘ভি’ লাগবে। যত ‘ভি’ থাকুক, এরপর আর কাউকে ছাড়া হবে না। প্রত্যেকের পাসপোর্টে সিল মারা আছে কি না, তারপর তাদের চেকটা ভালোভাবে হচ্ছে কি না, এমনকি ভিআইপি ইনক্লিপ যেগুলো আছে বা ভিভিআইপি, সেখানেও তাদের ল্যাগেজ, সব কিছু চেক করার ব্যবস্থা করতে হবে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘দিনরাত এত দিন পরিশ্রম করে প্লেন কিনে, বিমানের অবস্থাটা যখন একটা জায়গায় চলে আসছে, যখন চেষ্টা করছি যে আমরা আরও কয়েকটা নতুন রুটে যাব, যখন মোটামুটি ব্যবস্থা একটা আমরা করে ফেলেছি, ঠিক তখনই একেকটা ঘটনা এভাবে আসে।’

তিনি বলেন, দীর্ঘ দিন যারা বিমানকে নিয়ে খেলতো তাদের হয়তো সমস্যা হচ্ছে। ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে আবারও অভিনন্দন জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের দুই দেশের মধ্যে বিদ্যমান সমস্যাগুলো একে একে সমস্যা হবে। সমুদ্রসীমার সমাধান হয়েছে, ছিটমহল বিনিময় উৎসবমুখর পরিবেশে হয়েছে। বাকিগুলোও হবে।
এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী আগামী মাসে চীন সফরে যাবেন বলে জানান। তিনি বলেন, চীনের মহামান্য প্রেসিডেন্ট দাওয়াত দিয়েছেন। আলোচনা চলছে। তারিখ ঠিক হয়নি। সেখানে যাব ইনশাআল্লাহ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *