মুরাদনগরে ২০ দিনের শিশুকে নদী ফেলে হত্যা

আবুল কালাম আজাদ, মুরাদনগর (কুমিল্লা) থেকে: মুরাদনগরে ঘুমন্ত ২০ দিন বয়সী শিশু রাবেয়াকে কে বা কারা আরচি নদীতে ফেলে দিয়ে হত্যা করেছে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল আনুমানিক সাড়ে ৯টায় ২০ দিনের রাবেয়াকে ঘরে ঘুম পাড়িয়ে মা বাইরে যান পানি আনতে। এ সময় শিশু রাবেয়াকে কে বা কারা আরচি নদীতে ফেলে দিয়ে হত্যা করে।

শিশুটির মা ঘরে ফিরে সন্তানকে না দেখে খোঁজাখুজি শুরু করে। তবে কোথাও রাবেয়াকে পাওয়া যায়নি। শুক্রবার সকালে বাড়ির পাশে আরচি নদীতে শিশুটির মরদেহ ভেসে উঠে। শিশুটির মা রহিমা আক্তার রতœা কাঁদতে কাঁদতে বলেন, মাত্র ১০ মিনিট বাইরে ছিলাম। এরপর এসে দেখি আমার সোনামনি নেই। শিশুটির মায়ের চিৎকারে আশপাশের লোকজন জড়ো হয়। একমাত্র কন্যাকে হারিয়ে মা পাগলপ্রায়।

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলা টনকী ইউনিয়নের বাইড়া গ্রামে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। শিশুটির দাদা বাচ্চু মিয়া বলেন, আমার প্রবাসী ছেলে মুজিবুর রহমানের একমাত্র সন্তান রাবেয়াকে নিয়ে আমরা খুব আনন্দে দিন কাটাতাম। অনেক বছর পরে পরিবারে নতুন অতিথির আগমনে আমাদের মধ্যে সীমাহীন আনন্দ ছিল। শেষ বয়সে এমন মর্মান্তিক বিষয় মেনে নিতে পারছি না। এমন সর্বনাশ কে করলো বলেই তিনি কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

বাঙ্গরা বাজার থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, শিশুটির দাদা বাচ্চু মিয়া বাঙ্গরা বাজার থানায় শিশু রাবেয়া হত্যার অভিযোগ দাখিল করেছেন। শিশুটির সুরতহাল রিপোর্টেও জন্য কুমিল্লা কোচাইতলী সরকারি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *