রাউজান আ’লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি

এম বেলাল উদ্দিন ,রাউজান থেকে : রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের বহুল আলোচিত কাউন্সিল ও ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন আগামী শনিবার। কাউন্সিলে প্রায় ২৮ বছর পর নতুন সভাপতি, ২২ বছর পর নতুন সাধারণ সম্পাদক আসছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। উপজেলা আওয়ামী লীগের নতুন মাঝি কে হচ্ছেন-এমন আলোচনায় সরগরম এখন পুরো রাউজান। তবে এবার উপজেলা আওয়ামী লীগের দুই মূল পদে আসছে সম্পূর্ণ নতুন মুখ-এমনটাই অনেকটা নিশ্চিত বলে জানান দলের সাধারণ কর্মীরা।

এদিকে আসন্ন সম্মেলনকে কেন্দ্র করে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে। ১৪ ইউনিয়ন ও পৌরসভার ৯ ওয়ার্ডে উৎসবের আমেজ সৃষ্টি হয়েছে। কাজী আবদুল আবদুল ওহাবকে আহŸায়ক, আনোয়ারুল ইসলামকে সদস্য সচিব করে ১১ সদস্যবিশিষ্ট উপজেলা সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি প্রায় প্রতিদিনই করছে সভা। শনিবার বেলা আড়াইটায় রাউজান সরকারি কলেজ মাঠে অনুষ্ঠেয় রাউজানের রাজনীতির নেতৃত্ব নির্ধারণের এই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে বিশাল প্যান্ডেল, রাঙামাটি সড়কের আশপাশে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান, ব্যাপক সাজসজ্জাসহ আনুষঙ্গিক নানা প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে প্রস্তুতি কমিটি।

অপরদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন আয়োজনকে কেন্দ্র করে ইতোপূর্বে উপজেলার ১৪ ও পৌরসভার ৯ ওয়ার্ডের সম্মেলন সম্পন্ন করা হয়। দলীয় বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যায়, ১৯৯১ সালে দলের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর একাধারে দীর্ঘ ২৫ বছর পর্যন্ত আমৃত্যু সভাপতি ছিলেন শফিকুল ইসলাম চৌধুরী বেবী। ২০১৬ সালের ২৭ অক্টোবর তিনি মৃত্যুবরণ করলে সহসভাপতি হিসেবে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন কামাল উদ্দিন আহমেদ। তিনিও মারা যান গত জুলাই মাসে। অন্যদিকে ১৯৯৭ সাল থেকে দলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে থাকা মুসলিম উদ্দিন খানের এখন তৃণমুলের রাজনীতির সঙ্গে যোগাযোগ নেই। যোগাযোগ নেই স্থানীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গেও। তাছাড়া এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপির ধারার রাজনীতি ছেড়ে অন্য নেতৃত্বের রাজনীতিতে যুক্ত তিনি। এ কারণে আসন্ন সম্মেলনে তাঁকে নিয়ে কোনো আলোচনা নেই তৃণমূল পর্যায়ে। সব মিলিয়ে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের ধারণা, এবার দীর্ঘদিন পর সভাপতি-সম্পাদক যে দুজন আসছেন, তাঁরা নতুন মুখ।

পদ প্রত্যাশীরাও বেশ কয়েকমাস ধরে ইউনিয়ন পর্যায়ে সম্মেলন, জাতীয়-দলীয় কর্মসূচি গুলোতে সরব উপস্থিতি রেখে নীতিনির্ধারকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে আসছেন। অনেকে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বক্তব্যের মাধ্যমেও নিজেদের গুরুত্বপূর্ণ পদে স্থান দেওয়ার ইচ্ছা ব্যক্ত করেন। তবে বর্তমান কমিটির অনেকে দলের বিভিন্নক্ষেত্রে ভূমিকা না রাখায় তাঁরা এবার পদ-পদবি থেকে বাদ পড়তে পারেন-এমন আভাস মিলেছে।

সভাপতি-সম্পাদক পদে একাধিক প্রার্থীর নাম নেতাকর্মীদের মুখে শোনা যাচ্ছে। এর মধ্যে সভাপতি পদে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা কাজী আবদুল ওহাব, উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম ও অধ্যক্ষ কপিল উদ্দিন চৌধুরী। সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান যুগ্ম সম্পাদক বশির উদ্দিন খান, পৌরসভার ২য় প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ, বর্তমান সদস্য ও সাবেক সভাপতির ছেলে সাইফুল ইসলাম চৌধুরী রানা প্রমুখ।

এদিকে সম্মেলনে প্রায় দশ হাজার নেতাকর্মীর বসার আসন, সম্মেলন মঞ্চ ছাড়াও আলাদা আলাদা ভাবে তৈরী করা হয়েছে আমন্ত্রিত পর্যবেক্ষক মঞ্চ, অতিথি মঞ্চ, ডেলিকেট ও কাউন্সিলর মঞ্চ, মনিটিরিং মঞ্চ, সাংবাদিক মঞ্চ। সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক আবদুল ওহাব জানান, সম্মেলন স্থানে লাগানো হবে সিসি ক্যামেরা। নানা অনুষ্ঠান নিয়ে মঞ্চে থাকবে ভিন্ন ভিন্ন আয়োজন। সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির নেতৃবৃন্দ বলেন, এবারে সম্মেলন হবে রাউজানের ইতিহাসের একটি অংশ।

প্রসঙ্গত, ২১ সেপ্টেম্বর রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন উদ্বোধন করবেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি। প্রধান অতিথি থাকবেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি। বিশেষ অতিথি থাকবেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ এমপি। প্রধান বক্তা থাকবেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ সালাম।

Check Also

বিচ্ছেদের খবর কেবলই গুঞ্জন!

বিনোদন ডেস্ক : এক মাস পরই প্রথম বিবাহবার্ষিকী। আর তার আগেই গুঞ্জন শুরু হলো প্রিয়াংকা …

সম্রাটের মুখে আন্ডার ওয়ার্ল্ডের চাঞ্চল্যকর তথ্য

অনলাইন ডেস্ক : বিস্ময়কর আন্ডার ওয়ার্ল্ড। আধিপত্যের জন্য যেখানে প্রায়ই চলে অস্ত্র ও রক্তের খেলা। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *