রাউজান চিকদাইর শাহদাৎ ফজল যুব উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতার ইন্তেকাল

রাউজান প্রতিনিধি: রাউজান চিকদাইর শাহদাৎ ফজল যুব উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও দাতা সদস্য বিশিষ্ট শিল্পপতি ও দানবীর আলহাজ্ব খোন্দকার শাহাদৎ হোসেনের দু দফা নামাজে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। তিনি ১৯৮৪ সালে অনুন্নত ও শিক্ষায় পিছিয়ে থাকা এলাকার কথা চিন্তা করে বিশিষ্ঠ শিক্ষাবীদ আবুল ফজল ও তিনি এলাকার যুবকদের সমন্বয়ে শাহাদাৎ ফজল যুব উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। এবং সে স্কুলের তিনি আজীবন দাতা সদস্য ছিলেন। ইন্টার পাশ করা এই গুণী ব্যক্তি অগ্রণী ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। তিনি লোন অফিসার হিসেবে দক্ষতার পরিচয় দিয়ে কতৃপক্ষের মন জয় করতে সক্ষম হন। পরে তিনি চাকুরী থেকে পদত্যাগ করে ব্যবসায় নিজেকে মনোনিবেশ করেন। এরপর বর্তমান জে.কে গ্রæপের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলম খান সহ তিনি জেএস লিমিটেড ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে খাতুন গঞ্জের আমির মার্কেটে যৌথ ব্যবসা শুরু করেন। পরবর্তী দুইজন একই মার্কেটে আলাদা আলাদা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে দুইজনই দেশের স্বনামধ্যন্য শিল্পপতি হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করেন। তিনি জাতীয় পার্টির আমলে সাবেক মন্ত্রী জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুর ঘনিষ্ঠজন হিসেবে সমগ্র চট্টগ্রামে পরিচিতি লাভ করেন। তার প্রথম সংসারে ২৩ বছর পর্যন্ত কোন ছেলে সন্তান না থাকায় তিনি পরবর্তী মুন্সিগঞ্জ জেলা থেকে দ্বিতীয় বিবাহ করেন। বর্তমানে স্ত্রী, ৩ ছেলে, এক মেয়ে রয়েছে তার। তিনি আমৃত্যু ইন্ডিয়ার আমুল, দুধ বাংলাদেশের আমদানিকারক ছিলেন। বর্তমানে তার ছেলেরা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুলো পরিচালনা করছেন।
উল্লেখ্য, খোন্দকার শাহাদাৎ হোসেন ৭০ বছর বয়সে শনিবার রাত ২টায় চট্টগ্রামের সিএসসিআর হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। দীর্ঘদিন তিনি হার্ট সহ বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। রোববার ১২টা ৪৫ মিনিটে তার প্রতিষ্টিত শাহাদাৎ ফজল উচ্চ বিদ্যালয় ময়দানে প্রথম নামাজে জানাযা ও বেলা ২টায় চিকদাইর উচ্চ বিদ্যালয় ময়দানে তার ২য় দফা নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়ে। তিনি চিকদাইর ইউনিয়নের ৩নম্বর ওয়ার্ডের মোহাম্মদ জামান খোন্দকার বাড়ীর হাজী এজহার মিয়ার প্রথম পূত্র। তার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *