সদ্যপ্রাপ্ত

শুভসূচনায় শুরু হোক বিশ্বকাপ মিশন

স্পোর্টস রিপোর্টার: সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে আজ শুরু হচ্ছে টি-২০ বিশ্বকাপ। করোনা মহামারির কারণে বছরের শুরুতে আয়োজকদের মধ্যে ছিল নানা উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা। পরে ছাড় দিয়ে আলোচনার টেবিলে সব পক্ষ এক হওয়ায় উড়ে যায় অনিশ্চয়তার মেঘ। ভারত থেকে ভেন্যু সরিয়ে নেওয়া হয় আরব আমিরাত ও ওমানে। ভারতকে স্বাগতিক রেখেই নিউ নরমাল সময়ের বাস্তবতায় পাঁচ বছর পর আজ আবার মাঠে গড়াচ্ছে টি২০ বিশ্বকাপ।

মাসকটের আল আমেরাত স্টেডিয়ামের উদ্বোধনী ম্যাচে ওমানের প্রতিপক্ষ পাপুয়া নিউগিনি। আইসিসির দুই সহযোগী দেশের ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ মাঠে গড়ালেও উদ্বোধনী দিনের মূল আকর্ষণ বাংলাদেশ। রাত ৮টায় মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও স্কটল্যান্ড। এ ম্যাচে ক্রিকেট বিশ্বের ফোকাস থাকবে টাইগারদের ওপর। ক্রিকেটের তারার মেলায় মুখর হবে মাসকট, আবুধাবি, দুবাই ও শারজাহ। এক মাসের অভিযানে হয়তো ক্রিকেটের আকাশে উদিত হবে নতুন কোনো নক্ষত্র। যেখানে আলো ছড়াতে পারেন বাংলাদেশেরও কেউ।

মাহমুদউল্লাহদের জন্য এটি শুধুই একটি বিশ্বকাপ নয়। ভালো কিছুর প্রতিশ্রুতি দিতেই গতকাল আল আমেরাত স্টেডিয়ামের হাইব্রিড সংবাদ সম্মেলনে আলেন। টাইগার দলপতি জানান, অতীত ভুলে আত্মবিশ্বাসকে পুঁজি করে সেরা ক্রিকেট খেলতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ তারা। নিয়মের বেড়াজালে আটকে পড়ায় বাছাই রাউন্ড দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করতে হচ্ছে বাংলাদেশের।

২০১৪ সালে টি২০ বিশ্বকাপে এই নিয়ম চালু হওয়ার পর থেকেই বাছাই পর্বের দল টাইগাররা। যে রাউন্ডের পারফরম্যান্স ক্রিকেটের কুলীনকুলে খুব একটা গণ্য করা হয় না। উপস্থিত এক সাংবাদিক মাহমুদউল্লাহকে এই প্রশ্ন ছুড়ে দিলে মুচকি হেসে তিনি বলেন, ‘হয়তো হয় না। তবে আমাদের কাছে সব ম্যাচই সমান। প্রথম রাউন্ডে যে তিন প্রতিপক্ষ স্কটল্যান্ড, ওমান ও পাপুয়া নিউগিনি- সবাইকে সমান গুরুত্ব দিয়ে মোকাবিলা করতে হবে।

টি২০ ছোট সংস্করণের খেলা। জিততে হলে নির্দিষ্ট দিনে ভালো করতে হয়। আমরা এবার ভালো কিছু করতে চাই। চেষ্টা থাকবে যত বেশি পারা যায় ম্যাচ জেতা। সুপার টুয়েলভে যেতে হলে প্রথম রাউন্ড পার হতে হবে আগে। সে জন্য ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে দল হিসেবে।’

এবার টাইগারদের ফোকাস আগের সব আসরকে ছাপিয়ে সেরা পারফরম্যান্স করা। বাছাই রাউন্ড পেরিয়ে সুপার টুয়েলভে একাধিক ম্যাচ জেতা। সেভাবে স্কোয়াড সমন্বয় করা হয়েছে বলে জানান দলপতি মাহমুদুল্লাহ। তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচ দেখে একাদশ গোছানো হয়েছে। লিটন কুমার দাস, নাঈম শেখ, সৌম্য সরকারকে ওপেনিং স্লটের বিবেচনায় রাখা হয়েছে। লিটন-নাঈম ওপেন করলে সৌম্য খেলতে পারেন তিন নম্বরে। সাকিব ও মুশফিকুর রহিমের ব্যাটিং অর্ডার চার ও পাঁচে ভাগাভাগি করা হবে। আফিফ হোসেনকে খেলানো হতে পারে সাত নম্বরে। অলরাউন্ডার বেশি নিয়ে ব্যাটিং লাইনআপ লম্বা রাখার চিন্তা টিম ম্যানেজমেন্টের। যাতে করে টি২০’র কাননে রানের ফুল ফোটাতে পারেন ব্যাটাররা। আর বোলিং লাইনআপে আনা হবে স্পিন ও পেসের ভারসাম্য। উদ্দেশ্য সমন্বিত পারফরম্যান্স করে বিশ্বকাপে ধারাবাহিক ম্যাচ জেতা। আজকের ম্যাচে স্কটল্যান্ডকে হারিয়ে টুর্নামেন্টে শুভসূচনায় শুরু হোক টি-২০ বিশ্বকাপের যাত্রা- এই কামনা সারাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *