শ্রীলেখার কষ্ট

বিনোদন ডেস্ক: খুব মন খারাপ টলিউড অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রের। আর এমনটা হবেই বা না কেন। কারণ একটি ভালো কাজ করতে গিয়েও প্রতিবেশীদের কটাক্ষের শিকার হতে হয়েছে তাকে! এ নিয়ে ভারতীয় এক দৈনিকে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, মাস খানেক আগে বেহালার নতুন ফ্ল্যাটে সংসার সাজিয়েছেন শ্রীলেখা ও তার মেয়ে। ঘটনাটা খুশির হলেও এতে খানিক বেদনা নিয়ে এসেছে শ্রীলেখার ‘জীবে প্রেম’। কমপ্লেক্সের বাসিন্দাদের কাছে চক্ষুশূল হয়ে উঠলেন অভিনেত্রী। তার অপরাধ? ভালবেসে আশ্রয় দিয়েছিলেন রাস্তা থেকে পাওয়া একটি কুকুর ও তার দুটি ছানাকে। ব্যস, সেই থেকেই বাঁধল হুলুস্থূল। কীভাবে? একটু পেছনে যাওয়া যাক তাহলে।

শ্রীলেখা এবং তার মেয়ে কুকুর খুব পছন্দ করেন।
কিছুদিন আগেই রাস্তার একটি কুকুর ও তার দুটি ছানা ঘরে তুলে নিয়ে আসেন তার মেয়ে। আসলে ঠিক মতো চোখ না ফোটায় গাড়ি চাপা পড়ে প্রায় মারাই যাচ্ছিল কুকুরছানা দু’টি। অবহেলায় অসহায় অবস্থায় রাস্তায় পড়েছিল এ দুই সদ্যজাত এবং তাদের মা। দেখে মায়ায় পড়ে যান অভিনেত্রীর মেয়ে। আর এ কারণেই কোনো কিছু না ভেবে রাস্তার ওই কুকুরছানা এবং তাদের মা’কে সোজা বাড়িতে নিয়ে চলে আসেন। কাউকে কিছু না বলেই শ্রীলেখা নিজের বিলাসবহুল কমপ্লেক্সের ভিতর আশ্রয় দেন তাদের। তাদের গোসল, খাওয়া-দাওয়ার দায়িত্ব তুলে নেন নিজের কাঁধে। আর এতেই ঘটেই বিপত্তি!

কমপ্লেক্সের অন্য আবাসিকরা খুব চটে যান টলিউড অভিনেত্রীর উপর। তথাকথিত শিক্ষিত এবং আধুনিক মনস্ক মানুষেরা অসহায় পশুদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য কটাক্ষ করা শুরু করেন শ্রীলেখা এবং তার মেয়েকে। আর এই ঘটনাই সোশ্যাল মিডিয়ায় তুলে ধরে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী। তিনি প্রশ্ন তুলেছেন,‘কোথায় সেই পশুপ্রেমীরা? এখন তারা চুপ করে রয়েছেন কেন? মানুষের মধ্যে কি সত্যিই মনুষ্যত্ব বেঁচে নেই!’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *