হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসনিক ভবনে তালা

শাহ্ আলম শাহী. দিনজপুর থেকে: দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসনিক ভবন ও লাইব্রেরীতে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে শিক্ষার্র্থীরা। এতে প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ হয়ে পড়েছে। এছাড়াও শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে নবাগত শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজিত ওরিয়েনটেশনের অনুষ্ঠান পন্ড হয়ে গেছে। এ কারণে অনুষ্ঠানে যোগদিতে দূর-দুরান্ত থেকে আসা প্রায় ৩ শকাধিক শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকেরা চরম ভোগান্তির শিকার হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগে অনিয়ম, যৌন হয়রানি বন্ধ এবং বিচারহীনতা ঘটনাসহ ১১ দফার দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সৃষ্টি হয়েছে এ অচলাবস্থা। একই দাবিতে রোববার বিকেল ৫ থেকে রাত সোয়া একটা পর্যন্ত প্রায় সোয়া ৮ ঘন্টা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসনিক ভবন তালা ঝুলিয়ে রেজিষ্টার প্রফেসর ডা.ফললুল হক, অর্থ বিভাগের পরিচালক প্রফেসর ড.শাহাদৎ হোসেন খান লিখনসহ প্রক্টর এবং উপদেষ্টসহ বিভিন্ন পদে দ্বায়িত্বশীল শিক্ষকদের অবরুদ্ধ করে রাখে আন্দোলনরত ছাত্ররা। সকালে আলোচনায় বসার প্রতিশ্রæতির প্রেক্ষিতে তাদের ছেড়ে দেয়া হলেও আলোচনায় বসেনি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ফলে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসনিক ভবন ও লাইব্রেরীতে তালা ঝুলিয়ে দেয়।

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পদে ১০জন কর্মকর্তা এবং ৪৯জন কর্মচারি নিয়োগের বিষয়ে রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েব সাইটে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ঘটনা জানাজানি হলে তাৎক্ষণিকভাবে আন্দোলনে নামে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। বিকেল সোয়া ৫টার দিকে ওরিয়েনটেশনের মঞ্চ ভাংচুর করে। প্রশাসনিক ভবনে তালা দিয়ে রেজিষ্টার, প্রক্টর এবং উপদেষ্টসহ বিভিন্ন পদে দ্বায়িত্বশীল শিক্ষকদের অবরুদ্ধ করে রাখে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবার হুঁশিয়ারি দিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

অন্যদিকে রিজেন্ট বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী পদোন্নতির দাবিতে অর্ধদিবস কলম বিরতিসহ অবস্থান ধর্মঘট পালন করে সহকারি প্রশাসনিক পদের কর্মকর্তারা। এক দফার ওই দাবিতে গত দেড়মাস ধরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছেন প্রায় শতাধিক সহকারি প্রশাসনিক কর্মকর্তা। বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পদোন্নতি/পর্যায়োন্নয়ন নীতিমালা সংক্রান্ত প্রবিধান (সংশোধিত)Ñ২০০৯ এর ধারা-২ স্পষ্টীকরণ, সংযোগন, পরিবর্ধন ও পরিমার্জন সংক্রান্ত বিয়য়ে ২০১৮ সালের ৯ জানুয়ারী রিজেন্ট বোর্ডের ৪১তম সভায় ৫ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভাইস-চ্যাঞ্জেলর অধ্যাপক ড.এ.কে.এম. নুর-উন-নবী, মাওলানা ভাষানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যাঞ্জেলর প্রফেসর ড. মো. আলাউদ্দীন, দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর মো. মিজানুর রহমান, প্রফেসর ড. ফাহিমা খানম ও প্রফেসর প্রফেসর ড. মো. শাহাদৎ হোসেন খানের সমন্বয়ে গঠিত কমিটি যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে পদোন্নতির দেয়ার কথা জানিয়ে যথাসময়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে রিপোর্টও পেশ করেছেন। কিন্তু,আটকে আছে তাদের পদোন্নতি।
এ সব ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার প্রফেসর ডা. ফজলুল হক জানান, নিয়ম মেনেই সমস্যার সমাধান করার প্রক্রিয়া চলছে।

Check Also

কনিকার টেস্ট এবার ‘নেগেটিভ’

বিনোদন ডেস্ক: দেহে সংক্রমণ নিয়ে ঘুরে-বেড়িয়ে রোগ ছড়ানোর জন্য সমালোচিত বলিউডি গায়িকা কনিকা কাপুর করোনা …

বিটিভিতে ফের আসছে ‘কোথাও কেউ নেই’ ও ‌‘বহুব্রীহি’

বিনোদন রিপোর্টার: বিটিভিতে আবারো প্রচারে আসছে নন্দিত কথাশিল্পী হ‌ুমায়ূন আহমেদের লেখা জনপ্রিয় দুই ধারাবাহিক নাটক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *