হোম মেড কেক বিক্রি করে সফল নওগাঁর জান্নাতুল ফেরদৌস আখিঁ।

উদ্যোক্তা বার্তাঃ-

প্রতিটি নারীর সফলতার পিছনে থাকেন তিনি নিজেই। কারণ তার ইচ্ছা শক্তি এবং মনোবল ,তাকে নিয়ে যেতে পারে বহুদূর। নিজের ইচ্ছা শক্তিকে কাজে লাগিয়ে আজকের নারীরা এগিয়ে যাচ্ছে বহুদূর। তেমনি ভাবে একজন সফল ছাত্রী পরিচয়ের পাশাপাশি একজন সফল উদ্যোক্তার পরিচয় গড়ে তুলেছে নিজের নামের পাশে জান্নাতুল ফেরদৌস আখিঁ।

তার এগিয়ে যাওয়ার সেই সুন্দর গল্পটি আমাদের কে নিজের মুখেই জানালেন তিনি। জেনে নেয়া যাক তার সংগ্রামের গল্প-

“আমি জান্নাতুল ফেরদৌস আখিঁ আমি একজন ছাত্রী বর্তমানে পড়াশোনা করছি অর্নাস দ্বিতীয় বর্ষে, পদার্থ বিজ্ঞান নিয়ে। পড়াশোনার পাশাপাশি আমার ছোট একটি অনলাইন বিজনেস রয়েছে। যেখানে আমি সাধারণত হোমমেড ফুড ও কেক তৈরি করে সেল করে থাকি।

নারীরা আজ আত্মনির্ভরশীল। আর সেইটা প্রমাণ করার জন্যই আমার এই ছোট উদ্যোগ। শুধুমাত্র একজন সফল ছাত্রী হিসেবে নয় পাশাপাশি নিজেকে দেখতে চেয়েছি একজন সফল উদ্যোক্তা হিসেবে।

খুব অল্প বয়সেই অনেকের উদ্যোক্তা হওয়া দেখে আমার খুব ইচ্ছে হয় উদ্যোক্তা হবো। সেই শখের বশে আজ আমার খাবার তৈরি করে নওগাঁ জেলার মধ্যে ভালো সুনাম অর্জন করেছি।

আমি নানান রকম মজাদার রান্না করতে বেশ পছন্দ করি। এছাড়া আমার আমি নিজেই কেক খেতে বেশ পছন্দ করে। তাই হরেক রকমের কেকও বানাতাম ঘরের সবার জন্য। এবং আমার কেক খেতে সবাই খুব পছন্দ করতেন এবং প্রশংসাও করতেন। সে থেকেই মাথায় আসলো আমি আমার রান্নার স্কিলকে কাজে লাগিয়ে একটি অনলাইন হোমমেড ফুড সার্ভিস খুলতে পারি। এর ফলে যারা বাহিরের অস্বাস্থ্যকর খাবার খেতে পছন্দ করেন না এবং হোমমেড স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খুঁজে থাকেন তাদের জন্যও উপকারী এবং আমার জন্য বেশ সহজ ও আনন্দময়ী একটি কাজ হবে।

স্বাবলম্বী হওয়ার সেই স্বপ্নকে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ২০২১ সালে শুরু করি আমার একটু একটু করে পথচলা। Jannat’s Food Land নামক একটি অনলাইন পেজ খুলার মাধ্যমেই আমার বিজনেস এর প্রথম যাত্রা শুরু হয়। পেইজ খোলার পর আমার রান্নার ও কেক এর নানান রকম ছবি আমি শেয়ার করতে থাকি। কিছুদিন পরেই আমার অর্ডার চলে আসতে থাকে। এতো স্বল্প সময়ে যে এতো সারা পাবো আমি কখনো ভেবে উঠতে পারিনি। আমার প্রথম কাস্টমার ছিলেন আমারই প্রতিবেশী এক আপু।

আমার এই কাজে আমাকে সবচেয়ে বেশি অনুপ্রানিত করেছে আমার মা ও বড় আপু। তারা আমাকে উৎসাহ দেয় আমার কাজ কে এগিয়ে নেয়ার জন্য। বিজনেস শুরু করার আগে তাদের উৎসাহে আমি ছোট একটি কেক বানানোর উপর কোর্স ও করে থাকি। তারা আমার পাশে না থাকলে আমি সাহস পেতাম না এতো দূর এগিয়ে যাওয়ার।

সবাই যেহেতু আমার পাশে ছিল তাই আলহামদুলিল্লাহ বিজনেসে আমার তেমন কোন বাঁধার সম্মুখীন হতে হয়নি। সব বেশ ভালো যাচ্ছিলো।

আব্বু-আম্মুর দোয়া ও আমার কাস্টমারদের সাপোর্ট ,ভালোবাসায় এখন আমি স্বাবলম্বী। এখন আমি আমার অনলাইন বিজনেস এর পাশাপাশি নিজেই বেকিং বিষয় নিয়ে কোর্স করানোর চেষ্টা করবো ভবিষ্যতে । যা আবার বিজনেসের পাশাপাশি আরও একটি নতুন উদ্যোগ। আলহামদুলিল্লাহ্‌ এখন আমি একজন সফল উদ্যোক্তা। এখন আমার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা একটাই আমার এই হোমমেড ফুড বিজনেজ-এর সঙ্গে আমার এই নতুন উদ্যোগটিকে অনেক দূর নিয়ে যাওয়া। শেখার কোন শেষ নেই

Check Also

বাঁশকাটা কে কেন্দ্র করে চাচা চাচি কে নির্মমভাবে যখম করছে ভাতিজা।

নওগাঁ জেলার বদলগাছী উপজেলার আপন চাচা চাচিকে নির্মম ভাবে যখম করছে ভাতিজা। এস,এম মোস্তাকিম নওগাঁ …

ক্যান্সার,কিডনি,লিভার সিরোসিস,স্ট্রোক প্যারালাইজড,থ্যালাসেমিয়া রোগীদের মাঝে এককালীন আর্থিক অনুদান প্রদান

বদলগাছী, উপজেলা প্রতিনিধি, বদলগাছী উপজেলা সমাজ সেবা কার্যালয় বদলগাছী কর্তৃক আয়োজিত ক্যান্সার,কিডনি,লিভার সিরোসিস,স্ট্রোক প্যারালাইজড,থ্যালাসেমিয়া রোগীদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *